ক্রিসমাসে উইস করে ম্যারি ক্রিসমাস বলে, গিফট কার্ড ইত্যাদি বিতরণ


ক্রিসমাসে উইস করে ম্যারি ক্রিসমাস বলে, গিফট কার্ড ইত্যাদি বিতরণ করে আল্লাহর সাথে শির্ক করাকে আপনি উদযাপন করলেন, আল্লাহর সাথে শির্ক করাকে আপনি সমর্থন করলেন,তার মানে হল আপনিও শির্কি বিশ্বাসে লিপ্ত হলেন,যদি জেনে শুনে সজ্ঞানে করে থাকেন।আল্লাহ কাউকে সন্তান হিসেবে গ্রহণ করেছেন এমন জঘন্য
মহাপাপের শির্কি কথা আপনি মেনে নিলেন।

– ঈসা (আঃ) কে আল্লাহর সন্তান বলে যারা শির্ক-এ-আকবার এ লিপ্ত তাদেরকে
আপনি উৎসাহিত করলেন।

এ শির্কি মহাপাপের মিথ্যা কথাসম্পর্কে আল্লাহ তা’য়ালা সুরা মারইয়ামে বলছেন- (এটা এতো কঠিন কথা) এর দ্বারা মহাকাশমন্ডল বিদীর্ণ হয়ে যাবার উপক্রম করছে আর পৃথিবী চূর্ণ-বিচূর্ণ হতে চলছে আর পাহাড়পর্বত খন্ডবিখন্ড হয়ে ভেঙ্গে পড়ছে — আল্লাহ তা’য়ালা সম্পর্কে এমন ভয়াবহ শির্কি মহাপাপের কথা যারা বলে বেড়াচ্ছে তাদেরকেই কিছু মুসলিম নামধারী কার্ড বিতরণ করে গিফট করে উইস করছে ,

-এ উইস করার মাধ্যমে কার্ড বিতরণ করার মাধ্যমে ম্যারি ক্রিসমাস বলে- আপনি শির্ক উদযাপনে উৎসাহিত করলেন- অনেকটা এভাবেই, এই নাও কার্ড, এই নাও গিফট- চমৎকার একটি দিন কাটাও আল্লাহর সথে শির্ক করার মাধ্যমে, যিশু কে আল্লাহর সন্তান বলে (নাউযুবিল্লাহ) আল্লাহর সাথে শির্ক-এ-আকবার লিপ্ত হয়ে তোমার দিনটি ভালো কাটুক।

এটা দিওয়ালি উৎসবে হ্যাপি দিওয়ালি বলে উইস করার মতই- যে আমি তোমার জন্য প্রার্থণা করছি যাতে তুমি আল্লাহর সাথে অংশীদার স্থাপনের মাধ্যমে নিকৃষ্টতম শরীক স্থাপন করার মাধ্যমে তোমার দিনটি এনজয় করতে পারো পরিপূ্র্ণভাবে। (নাউযুবিল্লাহ)।

আল্লাহর সাথে শরিক করে আল্লাহর সমকক্ষ মনে করে স্রষ্টা মনে করে অন্য যা কিছুর পূজা করা হয়, মূর্তি/গাছ/মানব/দানব/চন্দ্র/সূর্য/পাথর ইত্যাদি পূজা করে যেসব দিবস পালন করা হয়, এই দিবসগুলোতে একজন মুসলমানের বিধর্মীকে শুভেচ্ছা জানানো উইস করা কার্ড দেয়া গিফট পাঠানো ইত্যাদি সম্পূর্ণ হারাম ও শির্ক-এ-আকবার উদযাপনের শামিল।

অতএব মুসলমানদের বুঝতে হবে সতর্ক থাকতে হবে ম্যারি ক্রিসমাস, হ্যাপি দিওয়ালী ইত্যাদি উইস করার মাধ্যমে ক্ষমার অযোগ্য সর্বনিকৃষ্ট মহাপাপ শির্কে যেনো আমরা জড়িয়ে না পড়ি। এটা সুস্পষ্ট কুফরি ও সম্পূর্ণ শির্কি ভ্রান্ত বিশ্বাস উদযাপনের নিকৃষ্ট এক দিবস। সুতরাং এই দিনে ম্যারি ক্রিসমাস বলে উইস করা, কার্ড দেয়া, গিফট দেয়া সম্পূর্ণ হারাম ও শির্ক-এ-আকবার। কুফরির শেষ পর্যায়।

খ্রিষ্টান ভাই-বোনদের সাথে সামাজিক লেনদেন কুশল বিনিময় বিপদে আপদে সাহায্য করা, মানবিক প্রয়োজনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে ইত্যাদি আমাদের মানবিক দায়িত্ব কর্তব্য।
কিন্তু ধর্মীয় বিশ্বাসের বিষয়ে অত্যন্ত সতর্ক ও সাবধান থাকতে হবে।

Mufti Qazi Muhammad Ibrahim
Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s